গোসল করার সময় ৫টি নিয়ম না মানলে বিপদ!

০৬ মার্চ ২০১৮, ১৬:০৬

নিজস্ব প্রতিবেদক

গোসল করার সময় বেশ কিছু বিষয় আমাদের প্রত্যেককেই মাথায় রাখার প্রয়োজন৷ বেশ কিছু ভুল আমরা প্রায়শই করে থাকি, যা শরীরের ক্ষতি করে৷ এতে বড়সড় সমস্যাও দেখা যেতে পারে। গোসল করার সময় বাথরুমে স্ট্রোক হয়ে মৃত্যুর ঘটনাও অনেকসময়েই শোনা যায়।

এর পিছনে গোসল করার ধরণও অনেকাংশে নির্ভর করে৷ আপনি ভাবছেন, গোসল করার ধরণ বা নিয়মকানুন আবার কী ? বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে গোসেলের সময় এই কয়েকটি নিয়ম অবশ্যই সবার মেনে চলা উচিৎ৷ সেগুলো কী দেখে নিন৷

১.গোসেলের সময় প্রথমেই মাথায় জল ঢালবেন না৷ পা থেকে শুরু করে কাঁধ পর্যন্ত আগে পানি ঢেলে নিন। জল সরাসরি ঢালার থেকেও বেশি ভাল হয় যদি গা-হাত পা ভিজিয়ে নেন৷ কারণ মানুষের শরীরের রক্ত গরম৷ তাই গোসেলের সময় প্রথমেই মাথায় পানি ঢালাটা ঠিক নয়। এর ফলে মাথায় রক্ত উঠতে পারে৷ যার ফলে হতে পারে স্ট্রোকও৷

২. প্রবল বেগে শাওয়ার চালিয়ে মুখ ধোবেন না৷ কারণ পানি ত্বক ও চোখের ক্ষতি করতে পারে।

৩. বেশি গরম বা ঠান্ডা পানি গোসল করাটা ঠিক নয়৷ গোসেলের পানি উষ্ণ হওয়া প্রয়োজন৷ কারণ অতিরিক্ত গরম বা ঠাণ্ডা পানিতে গোসল করলে চুল এবং ত্বকের কোষের ক্ষতি হতে পারে৷ পাশাপাশি ত্বকে জ্বালা হওয়ার সম্ভাবনাও রয়েছে।

৪. দীর্ঘ সময় ধরে গোসল করাটা ঠিক নয়৷ অনেকেই রয়েছেন ঘণ্টার পর ঘণ্টা বাথরুমে সময় কাটান। দীর্ঘ সময় ধরে গোসল করলে চামড়ার আর্দ্রতা কমে যায়৷ এর ফলে ত্বক কুঁচকে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

৫. বাথরুমে বডি স্ক্রাবার রেখে দেওয়াটা ঠিক নয়৷ কারণ ভেজা জিনিসের মধ্যে ব্যাকটেরিয়া দ্রুত বৃদ্ধি পায়। এইভাবে, বাথরুমে স্নানের পর ভেজা স্ক্রাবারটি রেখে দিলে, তাতে ব্যাকটেরিয়ার পরিমাণ বাড়তে থাকে৷ যা চামড়া এবং শরীরের সংক্রমণের কারণ হতে পারে।

৬. তোয়ালে দিয়ে জোরে গা মোছা একেবারেই উচিৎ নয়৷ এতে ত্বক এবং চুলের ক্ষতি হতে পারে৷ বেশি পরিমানে স্ক্রাবিংও তাই ঠান্ডা নয় ত্বকের জন্য।

৫.সঠিক সাবান নির্বাচনও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। চেষ্টা করবেন ঘন ঘন সাবান না বদলাতে৷ অর্থাৎ একাধিক সাবান ব্যবহার করাটাও ঠিক নয়৷