প্রচ্ছদ

বিশ্বনাথে চলছে দুর্গোৎসবের প্রস্তুতি

প্রকাশিত হয়েছে : ১:০৮:০৪,অপরাহ্ন ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ / সংবাদটি পড়েছেন ১৯৫ জন

সিলেট নিউজ ওয়ার্ল্ড ডটকম

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। এ উৎসবকে জমিয়ে তুলতে সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলায় প্রতিমা তৈরি ও সাজসজ্জায় ব্যস্ত সময় পার করছেন আয়োজক ও কারিগররা। উপজেলায় এবছর সার্বজননী ২২টি ও ব্যক্তিগত ২টি পূজা মন্ডপে দূর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে।
দূর্গা পূজা সফলভাবে সম্পন্ন করার লক্ষে গত বৃহস্পতিবার পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। শারদীয় দুর্গোৎসব সুষ্ট ও শান্তিপূর্ন ভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট পুজা মন্ডপ ও পুজা পরিষদ সজাগ দৃষ্টিতে কাজ করে যাচ্ছে। উপজেলায় মন্ডপগুলোতে ইতিমধ্যে প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ পর্যায়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন আয়োজক ও মৃৎশিল্পীরা।
আগামী ১৫ অক্টোবর শারদীয়া দুর্গা পূজা শুরু হবে এবং ১৮ অক্টোবর দশমী পূজা ও বির্সজনের মধ্যে দিয়ে এ উৎসবের সমাপ্তি হবে। উপজেলাগুলোতে চারিদিকে উৎসব উৎসব ভাব বিরাজ করছে সনাতন ধর্মলম্বীদের মধ্যে। শেষ মুহর্তে কাপড়ের দোকানে ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

পূজার আর মাত্র কিছু দিন বাকি থাকলে উপজেলায় র্দূগা পূজার ব্যাপক প্রস্তুতি চলছে। শেষ মূর্হুতে প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় চলছে প্রতিমা তৈরির ধুম। দিন-রাত সমান তালে করে প্রতিমা তৈরি করে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পিরা। এখন শুধু বাকি রয়েছে প্রতিমায় রং তুলির কাজ। আগামী সপ্তাহের মধ্যে রং তুলির কাজ শুরু হবে বলে প্রতিমা শিল্পীরা জানান।

গতকাল শুক্রবার সকালে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়,বিভিন্ন মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ প্রায় শেষ। অনেক প্রতিমা শিল্পীরা বাড়িতে চলে গেছেন। আগামী সপ্তাহের প্রথম দিকে প্রতিমা শিল্পীরা এসে রং তুলির কাজ করবেন। এবছর বিশ্বনাথে ২৪টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

প্রতিমা তৈরি শিল্পীরা জানান, এসব পূজা মন্ডপে প্রতিমা সরবারহ করতে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন তারা। তাই খাওয়া-দাওয়া শেষে আরাম করার সময়টুকুও তাদের নেই। বাঁশ ও খড় দিয়ে প্রতিমা অবকাঠামো তৈরির পর মাটি দিয়ে প্রলেপ দিচ্ছেন শিল্পীরা। বছরের এই সময়টা ব্যস্ততায় কাটলেও অন্য সময় তাদের হাতে থাকেনা কাজ। কিন্তু কঠোর পরিশ্রম করেও তাদের কাটাতে হয় মানববেতর জীবন। তাই অনেকেই বাধ্য হয়ে বাপ-দাদার এই পেশা টিকে রেখেছেন কোনো রকমে। কেহ কেহ এই পেশা ছেড়ে অন্য পেশায় চলে যাচ্ছে।

বিশ্বনাথ উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি অজিত কুমার পাল বলেন, আগামী ১৫ অক্টোরব শারদীয়া দুর্গা পূজা শুরু হবে এবং ১৫ সেপ্টেম্বর দশমী পূজা ও বির্সজনের মধ্যে দিয়ে এ উৎসবের সমাপ্তি হবে। এবছরে ব্যক্তিভাবে ২টি মন্ডপে ও স্বার্বজনীন ২২টি মন্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। শান্তিপূর্ণভাবে ধর্মীয় উৎসব পূজা পালন করার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহবান জানান।

বিশ্বনাথ থানার (ওসি) শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, উপজেলার পূজা মন্ডপগুলোতে পুলিশ মোতায়েন থাকবে। পূজা মন্ডপগুলোতে যারা বিশৃংঙ্খলা সৃষ্টি করার চেষ্টা করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

বিশ্বনাথ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিতাভ পরাগ তালুকদার বলেন, পূজায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে উপজেলা প্রশাসনের সজাগ দৃষ্টি রয়েছে। এবার ২৪টি মন্ডপে পূজা উদযাপন হবে বলে তিনি জানান।

দেশ-বিদেশের পাঠক

আর্কাইভ

ডিসেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« নভেম্বর    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১