প্রচ্ছদ

বাবার নামে সঙ্গীত নিকেতন

সিলেট নিউজ ওয়ার্ল্ড ডটকম

বাবার কালজয়ী সৃষ্টি প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে ছড়িয়ে দিতে সঙ্গীতানুরাগীদের জন্য একটি সঙ্গীতশিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালু করেছেন সামিনা চৌধুরী। আর এটি চালু করতে অনেকটা বাধ্য হয়েছেন বলে জানালেন এই গানের পাখি। সামিনা জানান, রিয়্যালিটি শো ‘ক্ষুদে গানরাজ’ প্রতিযোগিতার অনেক প্রতিযোগীর অভিভাবকদের জোরাজুরিতে ‘মাহমুদুন্নবী সঙ্গীতনিকেতন’ নামের এই প্রতিষ্ঠানটি গড়েছেন তিনি। বর্তমানে এতে চারজন শিক্ষার্থী নিয়মিত গানের তালিম নিচ্ছেন। আপাতত নিজের বাসায় তালিম দেয়ার কাজটি করা হচ্ছে বলেও জানান সামিনা চৌধুরী। সঙ্গীতনিকেতন চালুর উদ্যোগ নেয়া প্রসঙ্গে শিল্পী বলেন, “একদশক আগে আমি যখন ‘ক্ষুদে গানরাজ’ অনুষ্ঠানের বিচারকাজ শুরু করি, তখন থেকেই অনেক বাচ্চার অভিভাবক আমাকে আলাদাভাবে সঙ্গীতশিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালুর অনুরোধ করেন। একপর্যায়ে আর অনুরোধ নয়, আমার ওপর জোরাজুরি করতে থাকেন। অভিভাবকদের মতে, আমার সংস্পর্শে এলে তাদের বাচ্চাদের মঙ্গল হবে। কিন্তু গান শেখাতে হলে তো অনেক সময় দিতে হয়। আমি তো স্টেজ শো, বিদেশে সফরসহ আরো কতশত ব্যস্ততায় সময় করতে পারছিলাম না। অভিভাবকদের জানিয়েও দিয়েছিলাম, পারব না। বাসায় যেসব বাচ্চাদের শেখাতাম, ওদের অভিভাবকদেরও জোরাজুরি ছিল, যেন একটা প্রতিষ্ঠান চালু করি। শেষ পর্যন্ত বাধ্য হলাম।’ সামিনা চৌধুরী আরো জানান, ঢাকার আজিমপুরে তার প্রয়াত বাবা মাহমুদুন্নবীর নামে অনেক আগে ‘আধুনিক সঙ্গীতনিকেতন’ প্রতিষ্ঠা করা হয়। সেই স্কুলটি এখনো আছে, তবে অন্যরা চালায়। কারা ‘মাহমুদুন্নবী সঙ্গীতনিকতন’-এ গান শিখতে পারবেন জানতে চাইলে সামিনা চৌধুরী বলেন, ‘এখানে সব বয়সীরা গান শি