প্রচ্ছদ

নানা অভিযোগে কাঠগড়ায় নারায়ণগঞ্জের তিন এমপি

প্রকাশিত হয়েছে : ২:২৭:০১,অপরাহ্ন ৩০ মে ২০১৮ | সংবাদটি ৫৬৮ বার পঠিত

সিলেট নিউজ ওয়ার্ল্ড ডটকম

নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী তিন জন সংসদ সদস্যের বিরুদ্ধে রয়েছে নানা অভিযোগ। দলীয় হাইকমান্ড তাদের সতর্ক করলেও পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায় নি। আলোচিত সংসদ সদস্যরা হলেন, নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) এর সাংসদ গোলাম দস্তগীর গাজী, নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনের সাংসদ নজরুল ইসলাম বাবু ও নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের প্রভাবশালী সংসদ সদস্য একে এম শামীম ওসমান। এ তিন এমপিই হলেন ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় জয়ী হওয়া সাংসদ। তবে দলের হাইকমান্ড ও নীতি নির্ধারক মহলের পক্ষ থেকেও স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে,আগামীতে সরকার ও দলের ইমেজ ক্ষুন্নকারী এবং জনবিচ্ছিন্ন সাংসদদেরকে মনোনয়ন দেয়া হবে না। আর ওই তালিকায় রয়েছেন নারায়ণগঞ্জের এ তিন এমপি। নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনের সাংসদ গোলাম দস্তগীর গাজীর বিরুদ্ধে রয়েছে ভূমিদস্যুতা, ক্ষমতার অপব্যাবহার, মাদক ব্যবসায়ীদের শেল্টার, জনবিচ্ছিন্নতা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা-হামলাসহ নিজের সহধর্মীনীকে কায়দা করে তারাব পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত করাসহ বিস্তর অভিযোগ। এছাড়া ক্ষমতার অপব্যবহার করে সে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বৃদ্ধিসহ প্রায় ৪-৫ হাজার বিগা জমির মালিক তিনি। নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনের সাংসদ নজরুল ইসলাম বাবুর বিরুদ্ধে ‘আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ’ হবার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযুক্ত হওয়া, ভূমিদস্যুতার অভিযোগ, ক্ষমতার অপব্যবহারসহ সাংবাদিকদেরকে নিয়ন্ত্রনের বড় ধরনের অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধেও। নজরুল ইসলাম বাবু গত ২০১৩ সনের সংসদ নির্বাচনে তার হলফ নামায় ৭২ লক্ষ ২১ হাজার টাকা উল্লেখ করেন। কিন্তু ২০১৪ সালে এমপি নির্বাচিত হবার পর বিপুল পরিমানে নগদ অর্থসহ বাড়ি-গাড়ি, প্রচুর বিত্তবৈভের ও ভূমির মালিক হন তিনি। সবশেষে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের প্রভাবশালী সংসদ সদস্য ও ওসমান পরিবারের ছোট সন্তান শামীম ওসমানের বিরুদ্ধেও রয়েছে সন্ত্রাসীদের মদদ দেওয়া, কুতুবপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে দায়িত্বহীতার পরিচয় ও আওয়ামী লীগ প্রার্থীর শোচনীয় পরাজয়, সোনারগাঁ পৌরসভা নির্বাচনে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে দলীয় (নৌকার) প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বিএনপির প্রার্থীকে বিজয়ী করা, নারায়ণগঞ্জে আলোচিত ত্বর্কী হত্যা মামলা নিয়েও অভিযোগের তীর তার দিকেই। সবশেষ এ বছরের গত ১৬ জানুয়ারী নগরীতে হকার ইস্যু নিয়ে মেয়র আইভীর উপর হামলার বিষয়টিকেও ভালভাবে নেয়নি দলীয় হাইকামান্ড। সব কিছু মিলিয়ে নারায়ণগঞ্জের এই তিন এমপি আসছে একাদশ নির্বাচনে পুনরায় দলীয় মনোনয়ন পাবেন কিনা তা নিয়ে যেমন রয়েছে অনিশ্চয়তা তেমনি তাদের কর্মকান্ডের ফিরিস্তিও রয়েছে হাই কমান্ডের টেবিলে। চলছে চুলছেড়া বিশ্লেষণও। এ কারণেই অভিযুক্তের তালিকায় রয়েছেন এ তিন এমপি। আর বাকি দুটি আসন রয়েছে ক্ষমতাসীন দলের মিত্র ও সংসদে বিরোদী দল জাতীয় পার্টির সাংসদ।

দেশ-বিদেশের পাঠক

আর্কাইভ

অক্টোবর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« সেপ্টেম্বর    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১