প্রচ্ছদ

পহেলা বৈশাখ ঘিরে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা’

প্রকাশিত হয়েছে : ২:৪৪:০২,অপরাহ্ন ১২ এপ্রিল ২০১৮ | সংবাদটি ১১৭ বার পঠিত

সিলেট নিউজ ওয়ার্ল্ড ডটকম

ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ‘বাংলা নববর্ষের অগ্রিম শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। বাঙালির প্রাণের মিলন মেলায় পরিণত হয়। লাখ লাখ নারী পুলিশ বৈশাখী পোশাক পরিধান করে আনন্দে মেলায় মেতে ওঠে।’

আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি পহেলা বৈশাখে পুলিশের করণীয় সম্পর্কে ব্রিফ করেন।

আছদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘ডিএমপির পক্ষ থেকে পুরো নগরীজুড়ে যাবতীয় নিরাপত্তা নিয়েছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, রমনা পার্ক, সোহরাওয়ার্দী উদ্যান সহ বিভিন্ন বিনোদন পার্কে নিরাপত্তা নিয়েছি। পোশাকে এবং সাদা পোশাকে নিরাপত্তাকর্মীরা উপস্থিত থাকবেন। নিরাপত্তার অংশ হিসেবে ডগ স্কোয়াড এবং বোম ডিস্পোজাল টিম থাকবে। পুরো ভেন্যু সিসি টিভি দ্বারা নিয়ন্ত্রণ থাকবে।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হবে। প্রতিটি ভেন্যুতে থাকবে আর্চওয়ে। প্রশিক্ষিত পুরুষ এবং নারী পুলিশ সদস্য থাকবে। বিশেষায়িত সোয়াত টিম বোম ডিস্পোজাল টিম এবং ডগ স্কোয়াড, জলযান নৌটহল, ডুবুরি দল এবং ফায়ার সার্ভিসের দল। থাকবে উৎসবে আসা সাধারণ মানুষের প্রয়োজনীয় মেডিকেল ব্যবস্থা। আমাদের পূর্ণাঙ্গ পরিকল্পনা করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, মঙ্গল শোভাযাত্রায় পুলিশ প্রহরা থাকবে। পথে কেউ মঙ্গল শোভাযাত্রায় প্রবেশ করতে পারবে না। কেউ মুখোশ ব্যবহার করবেন না। তবে হাতে ধরে রাখা যাবে। যারা মুখোশ ব্যবহার করবেন তাদের একটি তালিকা দেবেন চারুকলা ইনিস্টিটিউট থেকে। কেউ কোন বাণিজ্যিক ব্যানার দিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রায় প্রবেশ করতে পারবেন না।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ইতোমধ্যে বলা হয়েছে রমনা পার্কে তিনটি প্রবেশ এবং তিনটি বাইরের গেট থাকবে। সকালে মানুষের চাপ থাকলে প্রবেশ গেটেও বাহির গেট হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। বিকাল ৫টার মধ্যে উন্মক্তস্থানে কর্মসূচি শেষ করতে হবে। সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সন্ধ্যা ৭টার মধ্যে তাদের অনুষ্ঠান শেষ করবেন। আগামী ১৪ এপ্রিল রাতে পবিত্র শবে মিরাজ। শবে মিরাজের রাতে মুসলমান ধর্মপ্রাণ মানুষ যাতে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করতে পারেন সে ব্যবস্থা করা হবে।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে দা, কাচি, ছুরি দাহ্য পদার্থ বহন করা যাবে না। কেউ যদি ব্যাগ নিয়ে আসে, তাহলে ধাতববস্তু বহন করা যাবে না। প্রতিটি অনুষ্ঠান থাকবে ধূমপান মুক্ত। ইভটিজিং প্রতিরোধে থাকবে ভ্রম্যমাণ আদালত।

ঢাকা নগরীর পুলিশ প্রধান বলেন, আমরা শুধু নিরাপত্তাই দেবেনা, আমরা পহেলা বৈশাখে আসা সাধারণ মানুষকে আটটি স্থানে বিশুদ্ধ পানি বিতরণ করা হবে। সেই সাথে ফুলেল শুভেচ্ছা ও বাতাসার প্রদানের মাধ্যমে ভালবাসা জানানো হবে।

Media it

দেশ-বিদেশের পাঠক

আর্কাইভ

সেপ্টেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০