প্রচ্ছদ

দোষী সাব্যস্ত সালমান

প্রকাশিত হয়েছে : ১২:৪৩:৫৫,অপরাহ্ন ০৫ এপ্রিল ২০১৮ | সংবাদটি ১৭১ বার পঠিত

সিলেট নিউজ ওয়ার্ল্ড ডটকম

প্রায় দুই দশক ধরে চলে আসা কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলার রায় প্রদান করা হয়েছে আজ। এতে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন সালমান খান। অন্যান্য অভিযুক্তদের মামলা থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

সম্প্রতি ৫ এপ্রিল রায়ের তারিখ নির্ধারণ করেছিলেন যোধপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। রায়কে সামনে রেখে আদালতের নির্দেশ মতো উপস্থিত ছিলেন এ মামলার অভিযুক্ত অভিনেতা সালমান খান, সাইফ আলী খান, অভিনেত্রী টাবু, সোনালী বেন্দ্রে, নীলম ও দুশ্যন্ত সিং।

১৯৯৮ সালে হিন্দি সিনেমা হাম সাথ সাথ হ্যায়’র শুটিং চলাকালীন যোধপুরের কাছে কঙ্কনী গ্রামে বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ শিকারের অভিযোগ ওঠে সালমানের বিরুদ্ধে। পরবর্তী সময়ে এ বিষয়ে মামলাও দায়ের হয়। সিনেমাটিতে সালমান খানেরসহ অভিনয়শিল্পী সাইফ আলী খান, সোনালী বেন্দ্রে, টাবু ও নীলমকেও এ মামলায় অভিযুক্ত করা হয়।

সালমানের বিরুদ্ধে দুইটি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যার অভিযোগ ছিল। এ অভিনেতার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনের ৫১ ধারা এবং অন্যান্যদের বিরুদ্ধে ৫১ ও ১৪৯ ধারায় অভিযোগ দায়ের হয়েছিল। এ ধারায় দোষী সাব্যস্ত হলে সর্বোচ্চ সাজা ছয় বছরের জেল।

এর আগে ২০০৬ সালে এ মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছিল সালমানকে। কয়েকদিন জেলেও ছিলেন এ অভিনেতা। কিন্তু পরবর্তী সময়ে জামিনে মুক্তি পান তিনি। একই বছর সালমানকে দেয়া আদালতের সাজা স্থগিত করেন রাজস্থান আদালত। ২০১৬ সালে রাজস্থান উচ্চ আদালত এ মামলা থেকে এই অভিনেতাকে অব্যাহতি দেন। আদালতের পক্ষ থেকে বলা হয়, সালমানের বন্দুকের গুলিতেই যে হরিণগুলোর মৃত্যু হয়েছে তার কোনো প্রমাণ মেলেনি। কিন্তু রাজস্থান সরকার এ বিষয়ে আপিল করলে সালমানকে পুনরায় আদালত থেকে নোটিশ পাঠানো হয়।

গত বছর ১৩ সেপ্টেম্বর এ মামলার যুক্তি উপস্থাপন শুরু হয়। বাদি পক্ষের আইনজীবী প্রত্যক্ষদর্শীদের বক্তব্য তুলে ধরেন। ২৩ অক্টোবর বাদি পক্ষের আইনজীবীদের যুক্তি উপস্থাপন শেষ হয়। এরপর সালমানের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শুরু হয় এবং তা শেষ হয় চলতি বছর ৪ ফেব্রুয়ারি। এরপর মামলার সঙ্গে জড়িত অন্যান্য অভিযুক্তদের আইনজীবীরা তাদের যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন। গত ২৪ মার্চ এটি শেষ হয়।