প্রচ্ছদ

পাকিস্তানের এ কেমন হার!

প্রকাশিত হয়েছে : ১২:১৪:১০,অপরাহ্ন ১৩ জানুয়ারি ২০১৮ / সংবাদটি পড়েছেন ২১৮ জন

সিলেট নিউজ ওয়ার্ল্ড ডটকম

প্রত্যাশিতভাবেই ডুনেডিনের উইকেট ছিল স্লো। বল ব্যাটে আসছিল ধীর গতিতে। আর অসমান বাউন্স তো ছিলই। সব মিলিয়ে নিউজিল্যান্ড ও পাকিস্তানের মধ্যকার তৃতীয় ওয়ানডেতে লো স্কোরিং ম্যাচের প্রত্যাশায় ছিল ক্রিকেট প্রেমিরা।

কিন্তু এমন স্কোর হবে তা হয়তো কেউ কল্পনাও করেননি। স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে সবকটি উইকেট হারিয়ে ২৫৭ রান জমা করে। প্রথম দুই ম্যাচ হেরে আগেই পিছিয়ে ছিল চ্যাম্পিয়নস ট্রফির বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। আজ সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে ছিল সরফরাজ আহমেদের দল। কিন্তু দলের ব্যাটিং ছিল যাচ্ছেতাই।

৭৪ রানে গুটিয়ে যায় শোয়েব মালিক-বাবর আজমরা। দ্বিতীয় ইনিংসে ওয়ানডে এটি পাকিস্তানের সর্বনিম্ন রান। লজ্জার রেকর্ড গড়ে পাকিস্তান ম্যাচ হেরেছে ১৮৩ রানে।

সহজ লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যানই ছুঁতে পারেননি দুই অঙ্ক। ট্রেন্ট বোল্টের গতির ঝড়ে লন্ডভন্ড হয়ে যায় পাকিস্তানের ব্যাটিং অর্ডার। এরপর আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেননি সফরকারীরা। অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদের অপরাজিত ১৪ রানে আক্ষেপ বাড়ে পাকিস্তানের। শেষ দিকে মোহাম্মদ আমিরের ১৪ ও রুম্মান রাইসের ১৬ রানের সুবাদে সর্বনিম্ন ৪৩ রানের লজ্জা এড়ায় পাকিস্তান।

বল হাতে ট্রেন্ট বোল্ট ১৭ রানে ৫ উইকেট নিয়ে ধসিয়ে দেন। ক্যারিয়ারে তৃতীয়বারের মতো পাঁচ উইকেটের স্বাদ পান এ ব্যাটসম্যান। এছাড়া ২টি করে উইকেট নেন কলিন মুনরো ও লকি ফার্গুসন।

ব্যাটসম্যানরা ভালো করতে না পারলেও পাকিস্তানের বোলাররা ছিল দুর্দান্ত। শুরু থেকেই নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে আসছিল মোহাম্মদ আমির, হাসান আলী, ফাহীম আশরাফ ও রুম্মান রাইস।

তবে নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ছিলেন দায়িত্বশীল। ১০১ বলে ৭৩ রানের দারুণ ইনিংস খেলে কিউইদের ইনিংস একাই টেনে নেন। তাকে সঙ্গ দেন রস টেলর। ৫২ রান করেন তিনি। দুজনের ৭৪ রানের জুটির সুবাদে মিডল অর্ডারে লড়াইয়ের ভিত পায় নিউজিল্যান্ড। পরবর্তীতে টম লাথামের ৩৫ রানে আড়াইশ রানের সংগ্রহ পায় নিউজিল্যান্ড।

পাকিস্তানের হয়ে বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন রুম্মান রাইস ও হাসান আলী। ২টি উইকেট নেন লেগ স্পিনার শাদাব খান।