প্রচ্ছদ

ইতিহাসের সেরা অর্জনগুলোর সাক্ষী বাংলাদেশ

প্রকাশিত হয়েছে : ১১:১৫:২০,অপরাহ্ন ০৩ জানুয়ারি ২০১৮ | সংবাদটি ১২৪ বার পঠিত

সিলেট নিউজ ওয়ার্ল্ড ডটকম

বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের সেরা অর্জনগুলোর সাক্ষী হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। শুধু তাই নয়, বিশ্বকে কাঁপিয়ে দিয়েছে মাশরাফি-মুশফিক ও সাকিবরা। জানান দিয়ে রেখেছে ২০১৮ সালে বাংলাদেশ আরও গর্জন করবে। এবার দেখা যাক, বাংলাদেশ ক্রিকেট দল ২০১৭ সালে কেমন করলো। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল কিংবা শততম টেস্টে জয়। দারুণ সব কীর্তি গড়েছে মাশরাফি-সাকিবরা। তবে বছরের শেষে মাঠ ও মাঠের বাইরে, নানা কারণে উত্তেজনা ছড়িয়েছে দেশের ক্রিকেট। ২০১৭ সাল দেশের ক্রিকেটে কেমন কেটেছে দেখে নেয়া যাক। বাংলাদেশের ক্রিকেটে ঘটনাবহুল একটি বছর ছিলো ২০১৭। বছরের শুরুটা হয় কঠিন নিউজিল্যান্ড সফর দিয়ে। যেখানে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-২০ সিরিজের সবগুলো ম্যাচই হারতে হয় মুশফিক-মাশরাফিদের। দলগতভাবে কোনো অর্জন না আসলেও, ওয়েলিংটনে সিরিজের প্রথম টেস্টে তামিমের রেকর্ড ভেঙ্গে টাইগারদের হয়ে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত স্কোর ২১৭ রানের নতুন কীর্তি গড়েন সাকিব আল হাসান। মুশফিককে সঙ্গে নিয়ে তিনি গড়েন টেস্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ৩৫৯ রানের জুটি। টেস্ট মর্যাদা প্রাপ্তির দীর্ঘ ১৭ বছর পর অবশেষে ভারতে টেস্ট খেলে বাংলাদেশ। যদিও অভিজ্ঞতাটা সুখকর ছিলো না বাংলাদেশের জন্য। ব্যাঙ্গালুরুতে অধিনায়ক মুশফিক সেঞ্চুরি পেলেও, ম্যাচটি বাংলাদেশ হেরে যায় ২০৮ রানের বড় ব্যবধানে। এরপর মার্চে শ্রীলঙ্কা সফর। টেস্ট অঙ্গনে নিজেদের শততম ম্যাচটা স্মরণীয় করে রাখে বাংলাদেশ। তামিম-সাকিবের নৈপুণ্যে নিজেদের শততম টেস্টে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। ওয়ানডে সিরিজ শেষ হয় অমীমাংসিত ভাবে। তবে নাটকীয়তা ছিলো টি-২০ সিরিজে। হঠাৎ করেই অবসরের ঘোষণা দেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্র্তুজা। যদিও তার শেষ ম্যাচটিতে সতীর্থরা তাকে জয় উপহার দেন। আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে নিউজিল্যান্ড ও স্বাগতিক আয়ারল্যান্ডকে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজে অংশ নেয় টাইগাররা। এই সিরিজেই নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মত ওডিআই র‌্যাঙ্কিংয়ে ৬ষ্ঠ সাথে উঠে আসে মাশরাফির দল। যদিও তা বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে আবারো ৭ এ নেমে যায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের জন্য এবারের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি কেটেছে স্বপ্নের মত।প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে হেরে যায় মাশরাফিরা। অষ্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ম্যাচটি বৃষ্টিতে পণ্ড হওয়ায়, বেঁচে থাকে সেমিতে খেলার স্বপ্ন। নিজেদের শেষ ম্যাচে কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে সাকিব-মাহমুদুল্লাহর দুর্দান্ত জুটিতে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ। সেই জয় প্রথমবারের মত আইসিসির কোনো ইভেন্টের সেমিফাইনাল নিশ্চিতের সঙ্গে ২০১৯ বিশ্বকাপে সরাসরি অংশগ্রহণও নিশ্চিত করে। বহুল প্রতীক্ষিত টেস্ট সিরিজ খেলতে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশে আসে আগস্টে। রোমাঞ্চকর ঢাকা টেস্টে বাংলাদেশের সামনে দাঁড়াতে পারেনি অজিরা। সাকিব আল হাসানের অলরাউন্ড নৈপুণ্যে ২০ রানে জয় পায় টাইগাররা। যদিও চট্টগ্রাম টেস্টে আর পেরে ওঠেনি বাংলাদেশ। টেস্ট সিরিজ শেষ হয় ১-১ সমতায়। সেপ্টেম্বর অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে সুবিধা করতে পারেনি। টেস্ট থেকে সাকিবের সাময়িক বিরতিও আলোচনার খোরাক জুগিয়েছে। টেস্ট-ওয়ানডে-টি-২০তে ধবল ধোলাই হয়ে দেশে ফিরতে হয় টিম টাইগার্সকে। আদালতে গড়ানো ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচন নিয়েও পানি ঘোলা কম হয়নি। সাবের হোসেন চৌধুরী নির্বাচন না করায় অনেকটা ফাঁকা মাঠে গোল দিয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন। আবারো চার বছরের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন বিসিবি সভাপতি। বছরের শেষেও ছিলো উত্তেজনা। হেড কোচ চা-িকা হাথুরুসিংহের পদত্যাগের পরপরই টেস্ট ক্যাপ্টেনসি থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় মুশফিককে। প্রায় ৬ বছর পর আবারো সাদা পোশাকের ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব ফিরে পান সাকিব আল হাসান।



দেশ-বিদেশের পাঠক

আর্কাইভ

জুলাই ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« জুন    
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১